খুবি উপাচার্যের সাথে নেদারল্যান্ডসের ইরাসমাস বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলের সৌজন্য সাক্ষাৎ

নেদারল্যান্ডসের ইরাসমাস বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্য ইনস্টিটিউট ফর হাউজিং এন্ড আরবান ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের (আইএইচএস) তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল আজ ১৩ এপ্রিল (বুধবার) দুপুর সাড়ে ১২টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন এর সাথে তাঁর কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। প্রতিনিধি দলে ছিলেন আইএইচএস এন্ড আরবান হাউজিং ইক্যুয়ালিটি এন্ড সোশ্যাল জাস্টিস স্পেশালাইজেশনের সিনিয়র শিক্ষক ড. মার্টজে ভ্যান ইর্ড (Dr. Maartje Van Eerd), সিনিয়র শিক্ষক ড. অ্যালোনসো আয়ালা (Dr. Alonso Ayala), রিসার্চ অ্যাসিস্ট্যান্ট ডেভিড (David)।
উপাচার্য তাঁদেরকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, সুন্দরবন সন্নিহিত এলাকাসহ খুলনা উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ নানা দুর্যোগ-দুর্বিপাকে মানবেতর জীবনযাপন করছে। বিশেষ করে তাদের বসতি, পানীয় ও কর্মসংস্থানের পর্যাপ্ত সুবিধার অভাব রয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে তাদের এ জীবনধারা আরও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। এ এলাকায় বাঁধ, বসতি ও বিশেষ করে সুন্দরবনের পরিবেশ ও প্রতিবেশগত অবস্থা ও ব্যবস্থাপনা নিয়ে গবেষণা ও কাজ করার প্রচুর সুযোগ রয়েছে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট একাধিক সাবজেক্ট রয়েছে। তিনি এ লক্ষ্যে আইএইচএস এবং খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে যৌথ শিক্ষা ও গবেষণায় এমওইউ স্বাক্ষরের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। যাতে করে শিক্ষক-গবেষক এবং মাস্টার্স পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন গবেষণা প্রকল্প নিতে পারে। এছাড়া এক্সেঞ্জ প্রোগ্রামের আওতায় তারা নেদারল্যান্ডসের এ ইনস্টিটিউটে কাজ করতে পারে। উপাচার্য এসময় প্রতিনিধি দলের সদস্যদের সুন্দরবনের ওপর রচিত তাঁর একটি গ্রন্থ উপহার হিসেবে প্রদান করেন।
এসময় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বিষয়টিতে গুরুত্বারোপ করে যথাসম্ভব শীঘ্র একটি এমওইউ স্বাক্ষরের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।  এসময় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের প্রধান প্রফেসর ড. শেখ সিরাজুল হাকিম, সহকারী অধ্যাপক ইমরান হোসেন ফয়সাল, জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) এস এম আতিয়ার রহমান উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে ‘জলবায়ু পরিবর্তনজনিত স্থানচ্যুতি নারী অভিবাসীদের এশীয় শহরগুলিতে জীবিকা অন্বেষা প্রভাবিত করে: শহুরে আপগ্রেডিং এবং পুনর্বাসনে খাদ্য ও জল নিরাপত্তার উন্নতি’ শীর্ষক এক প্রশিক্ষণ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপত্য ডিসিপ্লিনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেখানে উক্ত ইনস্টিটিউটের আগত ৩ জন প্রতিনিধি প্রশিক্ষণ কোর্স পরিচালনা করছেন। বাংলাদেশের (খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়) ৫ জনসহ ভারত, নেপাল, ফিলিপাইন এবং ইন্দোনেশিয়ার ১৭ জন অ্যালামনাই এই প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশগ্রহণ করছেন।